গ্রীষ্মকাল, শুক্রবার, ২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,২৫শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি, দুপুর ২:০৯
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

প্রবাহিত করার চেষ্টা হচ্ছে বনানী ধর্ষণ মামলা…

admin

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার বনানীতে দ্য রেইনট্রি হোটেলে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ফরেনসিক রিপোর্টে ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ড  এ সংক্রান্ত রিপোর্ট ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।

ওই দুই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, ‘ঘটনার ৪০ দিন পর ওই দুই ছাত্রীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়। তাদের ডিএনএ প্রোফাইলে কোনো বীর্যের উপস্থিতি মেলেনি।

গত ৭ মে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুই তরুণীর ফরেনসিক টেস্ট (শারীরিক পরীক্ষা) সম্পন্ন হয়। পরীক্ষাগুলো হলো মাইক্রোবায়োলজি, রেডিওলজি এবং ডিএনএ।

উল্লেখ্য, গত ২৮ মার্চ রাতে রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের শিকার হবার অভিযোগ করেন এ দুই তরুণী। এরপর গত ৬ মে বনানী থানায় ওই তরুণীরা একটি মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলেন- আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার হোসেন সেলিমের ছেলে সাফাত আহমেদ, নাঈম আশরাফ, বিল্লাল হোসেন, সাদনান ও সাকিফ। সবাই গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন। এদের মধ্যে চারজন ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ইতোমধ্যে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে বিশিষ্ট মানবাধিকার নেত্রী ফরিদা আখতার বলেন, এ মামলায় ঘটনার শিকার দুই তরুণীর বক্তব্য এবং আসামিদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির পর ফরেনসিক রিপোর্টের তেমন একটা গুরুত্ব নেই। তারপরও ‘আলামত পাওয়া যায়নি’ বলে মেডিকেল রিপোর্ট দেয়া থেকে প্রমাণ হয় মামলা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা হচ্ছে।

ওদিকে, বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার মাসিক পর্যবেক্ষণ ও গবেষণার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, গত মে মাসে দেশে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৭৪ জন নারী ও শিশু।

সংস্থাটি মনে করছে, দেশের সামগ্রিক মানবাধিকার পরিস্থিতির ইতিবাচক কোনো পরিবর্তন হয়নি। পারিবারিক ও সামাজিক নৃশংসতার বিষয়টি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে যা উদ্বেগজনক। শিশু হত্যা, শিশু ধর্ষণ, গণধর্ষণ, পারিবারিক ও সামাজিক কোন্দলে আহত ও নিহত, নারী নির্যাতন, রাজনৈতিক সহিংসতার ঘটনাগুলি এ মাসে ছিল উল্লেখযোগ্য

আ-হৃ-০৪-০৬-১৭-০০-৫০

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।