গ্রীষ্মকাল, মঙ্গলবার, ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,২৯শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি, ভোর ৫:০২
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

এখনো অতিরিক্ত দামে বিক্রি হচ্ছে যে সব পণ্য…

admin

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

রমজান মাস শুরু আগে থেকেই চিনির বাজারে ছিল ঊর্ধ্বগতি। সেই ঊর্ধ্বগতির লাগাম এখনো টানতে পারেনি সংশ্লিষ্টরা। রমজান মাস শুরুর ১০-১৫ দিন আগে থেকেই বাজারে বাড়তে থাকে চিনির দাম। দাম বাড়তে বাড়তে ৫৫-৬০ টাকা দরে বিক্রি হওয়া প্রতিকেজি চিনি এখন ৮০ টাকা। অবশ্য গত সপ্তাহেও যেখানে প্রতিকেজি চিনি ৭৫ টাকায় বিক্রি হয়েছিল তা চলতি সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়। রাজধানীর কাওরান বাজার ও শুক্রাবাদ বাজার ঘুরে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে চিনির দামের ঊর্ধ্বগতি সম্পর্কে জানা যায়। চিনির মূল্যবৃদ্ধি সম্পর্কে বিক্রেতারা বলেন, রমজান শুরু আগে থেকেই চিনির দাম বাড়তে থাকে। এখনো চলমান রয়েছে। চাহিদা বেশি এবং সে তুলনায় দেশে কম উৎপাদন হওয়ার কারণে এমন দাম। এ ছাড়া প্রতি বছরই রমজানে চিনির মূল্য বৃদ্ধি পায়, এইটা নতুন কিছু না। চিনির বাজারের মতোই অস্থিতিশীল রয়েছে ভারতীয় রসুন, ধনেপাতা ও মাছের বাজার। যেখানে গত সপ্তাহে প্রতি কেজি ভারতীয় রসুন বিক্রি হতো ২২০ টাকায় তা দাম বেড়ে হয়েছে ৩০০ টাকা। এ ছাড়া গত সপ্তাহের তুলনায় প্রতিকেজি ধনেপাতা ১০০ টাকা বাড়তি মূল্যে ৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ভারতীয় রসুন ও ধনেপাতার বাড়তি দাম সম্পর্কে ব্যবসায়ীরা বলছেন, এর চাহিদা রমজানে কয়েকগুণ বেড়ে গেছে, আর সেই তুলনায় যোগান নেই। এ কারণেই মূলত দাম বেড়েছে। আমদানিগত সমস্যার কারণে বেড়েছে ভারতীয় রসুনের দাম। অন্যদিকে গত সপ্তাহে মতো এ সপ্তাহেও মাছের বাজারের ঊর্ধ্বধারা অব্যাহত। ১০ টাকা বেড়ে প্রতিকেজি পাঙ্গাস মাছ ১৪০ টাকা, রুই মাছ ১৫০ টাকা এবং তেলাপিয়া মাছ ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া অন্য সব মাছের দাম গত সপ্তাহের মতোই রয়েছে। ব্রয়লার মুরগির দাম প্রতিকেজিতে ১০টাকা বৃদ্ধি পেয়ে এখনবিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকায়। এ ছাড়া গরু মাংস প্রতি কেজি ৫০০ টাকা ও খাসির মাংস প্রতিকেজি ৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্য গত সপ্তাহেরই মতো রয়েছে। প্রতিকেজি ছোলা ৯০ টাকা, দেশি পেঁয়াজ ৩০ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ২৫ টাকা, দেশি রসুন ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া ভোজ্যতেল দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। মাছ, মাংস ও চিনির বাজারে অস্বস্তি থাকলেও সপ্তাহের ব্যবধানে স্বস্তি এসেছে সবজির বাজারে। পটল ১০ টাকা কমে ৩০ টাকা, চিচিঙ্গা ১০ টাকা কমে ৩০ টাকা, জালিকুমড়া প্রতি পিস ১০ টাকা কমে ২০ টাকা, বেগুন ২০ টাকা কমে ৪০ টাকা কেজি, গাজর ১০ টাকা কমে ৫০ টাকা কেজি ও কাঁচামরিচ ২০ টাকা কমে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

তৌহিদ আজিজ-৩-০৬-২০১৭-০০-১০

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।