বসন্তকাল, সোমবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,১৭ই রজব, ১৪৪২ হিজরি, রাত ৮:০৯
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সবজির বাম্পার ফলন জয়পুরহাটে…

admin

তৌহিদ আজিজ, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

চলতি মৌসুমে পটলসহ বিভিন্ন সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে এসব সবজির দাম বেশি পাওয়ায় কৃষকরা খুশি বলে জানান। স্থানীয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, খরিফ-১ মৌসুমে জেলায় ৭শ’ হেক্টর জমির লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ৮৫০ হেক্টর জমিতে এবার পটলের চাষ হয়েছে। এতে পটল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২০ হাজার ৬৫০ মেট্রিক টন। ইতিমধ্যে বাজারে পটলের আমদানী শুরু হয়েছে ব্যাপক হারে।

কৃষি বিভাগ জানায়, চাষ হওয়া অন্যান্য সবজিগুলোর মধ্যে রয়েছে বেগুন ৭৬৫ হেক্টর, করলা ৫৫৬ হেক্টর, বরবটি ৭৫ হেক্টর, ঝিংগা ৮০ হেক্টর, কাকরোল ৪০ হেক্টর, চিচিংগা ৫৫ হেক্টর, চাল কুমড়া ১৭৫ হেক্টর, মিষ্টি কুমড়া ৩৮০ হেক্টর, ডাটা ২৪০ হেক্টর, পুঁইশাক ২২৫ হেক্টর, লাল শাক ২৮০ হেক্টর, কলমী শাক ৮৫ হেক্টর, শষা ২৬৫ হেক্টর, ঢেঁরস ১৬০ হেক্টর, পেঁপে ৪৫ হেক্টর এবং লতিরাজ কচু ১ হাজার ৭৭৫ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে।

সব মিলে এবার সবজির উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এক লাখ ৫০ হাজার ৫৪০ মেট্রিক টন। যা জেলার সবজি চাহিদা মিটিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে। জেলায় এবার অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত না থাকায় শাক-সবজির ফলন ভাল হয়েছে বলে বাংলারিপোার্টকে জানান কৃষক ও কৃষি কর্মকর্তারা।

জেলার পাঁচবিবি উপজেলার খাসবাট্টা গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর আলম এবার দেড় বিঘা জমিতে পটল চাষ করেছেন। বাজার মূল্য ভাল পাওয়ায় তিনি খুশি বলে জানান বাংলারিপোর্টকে। একই গ্রামের কৃষক নুর আলম বাংলারিপোর্টকে বলেন, এক বিঘা জমিতে বেগুন চাষ করে ভাল ফলন পেয়েছি।

জেলার সবজি হাট-বাজারগুলো  সকালে ঘুরে দেখা যায় পটল বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি, বেগুন ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি, করলা ২০ থেকে ২৫ টাকা, বরবটি ৩২ টাকা, কাকরোল ৪০ টাকা, শশা ১৬ থেকে ২০ টাকা, লতিরাজ কচু ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, ঢেঁরস ২০ থেকে ২৫ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ২০ টাকা কেজি এবং চাল কুমড়া প্রকার ভেদে ১৫ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত পিস বিক্রি করতে দেখা গেছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সুধেন্দ্র চন্দ্র রায় বাংলারিপোর্টকে, জয়পুরহাটের সবজির মান খুব ভাল। সে করণে জয়পুরহাটের সবজির বাহিরে চাহিদা বেশি। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকাররা এসে এখান থেকে সবজি নিয়ে যায়।

০১-০৬-২০১৭-০০-৮০-০১

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।