গ্রীষ্মকাল, বৃহস্পতিবার, ২৩শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,২৪শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি, দুপুর ১:১২
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

চুলে উকুন থেকে রক্ষা পাওয়ার সহজ উপায়…

admin

ডা. নূরজাহান নীরা, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম 

চুলের একটি বিরক্তিকর সমস্যা হলো ‘উকুন’। এটি ছোট-বড় সবার চুলেই হয়ে থাকে। মূলত উকুন একটি পরজীবী প্রাণী যা মানুষের মাথার ত্বকে বসবাস করে। সাধারণত মাথা অপরিষ্কার থাকলে, ভেজা চুল বাধাঁর কারণে, ভেজা চুল অনেকক্ষণ বাঁধা থাকলে, অন্যের চিরুনি, টাওয়েল, গামছা ব্যবহার ইত্যাদি কারণে চুলে উকুন হতে পারে। মাঝে মাঝে সাময়িক সময় উকুনের সমস্যা দূর হলেও কিছুদিন পরই ঠিক আবার ফিরে আসে এই সমস্যা। কিন্তু কিছু ঘরোয়া উপায়ে এই বিরক্তিকর সমস্যা চিরতরে দূর করা সম্ভব। আসুন জেনে নেয়া যাক সেই উপায়গুলো।

নারকেল তেল
উকুন দূর করার ক্ষেত্রে নারকেল তেলও বেশ কার্যকর। নারকেন তেল উকুনদের শ্বাসরোধ করে দেয় ফলে উকুনরা বেশিক্ষণ থাকতে পারে না। ৩ টেবিল চামচ নারকেল তেল এবং খুব সামান্য কর্পূর মিশিয়ে নিন। তেলটি মাথায় ভাল করে ম্যাসাজ করুন। এরপর শাওয়ার কাপ দিয়ে মাথা ঢেকে দিন। পরের দিন সকালে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। শুকিয়ে গেলে চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান। এটি সপ্তাহে ৩ থেকে ৫ দিন করুন। দেখবেন উকুন গায়েব হয়ে গেছে।

ভিনেগার
ভিনেগার দিয়ে খুব সহজে উকুন দূর করা সম্ভব। এতে অ্যাসিটিক এসিড আছে যা উকুন দূর করতে সাহায্য করে। ভিনেগার আর পানি একসাথে মিশিয়ে নিন। এরপর এতে চুল ভিজিয়ে নিন। ১০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করুন।

মেয়নিজ
মজাদার মেয়নিজ দিয়েও উকুন দূর করে সম্ভব! মাথার তালুতে মেয়নজ লাগিয়ে নিন। এবার একটি শাওয়ার কাপ বা প্ল্যাস্টিক দিয়ে চুল পেঁচিয়ে রাখুন। এভাবে ৬ ঘন্টা রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। মেয়নিজের গন্ধে উকুন দম বন্ধ হয়ে দ্রুত মারা যায়।

নিম
উকুন দূর করতে নিম একটি প্রাকৃতিক প্রতিষোধক। মাথার তালুর চুলকানি কমানোর সাথে সাথে এটি মাথার ত্বক ময়েশ্চরাইজ করে থাকে। নিমের পেস্ট তৈরি করে এটি মাতার তালুতে ম্যাসাজ করুন। এটি সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন। এছাড়া নিমের তেল মাথায় ব্যবহার করতে পারেন। এক ঘন্টা রেখে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন। এটি সপ্তাহে তিন বার করুন।

টি ট্রি অয়েল
শ্যাম্পু করার সময় শ্যাম্পুর সাথে তিন থেকে পাঁচ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি দিয়ে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুলে শুকিয়ে গেলে একটি চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়িয়ে নিন। দেখবেন চিরুনিতে উকুন চলে আসছে। এটি কমপক্ষে দুই মাস ব্যবহার করুন। তবে টি ট্রি অয়েল ব্যবহারে সাবধানতা অবলম্বন করবেন, এটি অনেক বেশ শক্তিশালী।

পেঁয়াজ
পেঁয়াজের রসে সালফার যা উকুন দূর করতে সাহায্য করবে। ৪/৫ টা পেঁয়াজের রস করে নিন। এরপর তা মাথায় ম্যাসাজ করে লাগিয়ে নিন। ২ ঘন্টা পর কুসুম গরম পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুল শুকানোর পর চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ান, দেখবেন উকুন সব চিরুনিতে চলে এসেছে।

লেবুর রস
লেবুর রস উকুন দূর করতে বহুল ব্যবহৃত একটি উপায়। লেবুর রস মাথায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। ৩-৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। প্রথমে ভিনেগার দিয়ে এবং পরে কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন। উকুন আপনার মাথা থেকে দূর হয়ে যাবে। লেবুর রসের সাথে আদার পেষ্টও মিশিয়ে নিতে পারেন। এটি মাথায় ভাল করে ম্যাসাজ করুন। একটি তোয়ালে দিয়ে মাথা পেঁচিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে ২/৩ বার করুন। যদি উকুনের সমস্যা অনেক বেশি থাকে তবে এটি সপ্তাহে পাঁচবার করুন।

২১-০৫-২০১৭-০০-৩৩০-২১

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।