বসন্তকাল, রবিবার, ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,১৬ই রজব, ১৪৪২ হিজরি, রাত ৯:২৪
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

ঈদের ছুটিতে ওজন কমানোর উপায়…

admin

নূরজাহান নীরা, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

ঈদের ছুটিতে ওজন কি আসলেই কমে? এক ভদ্র মহিলা টেইলার্স থেকে জামা আনতে গিয়ে দেখেন জামাটা মনমতো ফিটিং হয়নি, অনেকটা ঢোলা। দর্জিকে এই কথা বলার পর দর্জি বললো, “আরে ম্যাডাম। চিন্তা করবেন না, ঈদের পর ঠিক-ই ফিট হয় যাবে। রমযানে তো সবার ওজনই বাড়ে।” অদ্ভুত হলেও কথাটা কিন্তু সত্যি। রমাদান মাসে দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকার ফলে শরীরে অধিক খাদ্য চাহিদা তৈরি হয়। ফলে রোযা রাখার শেষে ইফতারে যে অতিরিক্ত খাবার খাওয়া হয় তার সব পুষ্টি শরীর শোষণ করে। প্রচুর পরিমাণে ইফতের করা, সেহেরীতে আগাম বেশি খাওয়ার কারণেও রমযানে শরীরের ওজন অনেকটা বেড়ে যায়।

এছাড়া দীর্ঘ সময়ের এই ছুটিতে ঘুরাঘুরির সাথে সাথে খাওয়া দাওয়াটাও জম্পেশ হয়। তাই ঈদের ছুটিতে ওজন বেড়ে যায়। তাই ঈদের এই ছুটিতে কিছুটা নিয়ম মেনে চলে সহজেই ওজনকে নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারবেন। জেনে নিন এমন-ই কিছু উপায়-

ঈদের ছুটিতে ওজন কমানো

  • ভারী খাবার কম করে খান- উৎসবের আমেজে ভারী খাবার গুলো এড়িয়ে চলা আসলে কোনভাবেই সম্ভব না। তবে এসব খাবার খাওয়া নিয়ন্ত্রনে রাখা সম্ভব। পেট ভর্তি করে খাবার খাওয়ার অভ্যাস ত্যাগ করুন। আপনার শরীরের জন্য যতটুকু খাবার যথেষ্ট ততটা খান।
  • সালাদ খাওয়া – পোলাও, গোশত ইত্যাদির সাথে বেশি করে সালাদ খান। এতে সহজেই আপনার খাদ্যচাহিদা পূরণ হয়ে যাবে। বিভিন্ন সব্জির সালাদ শরীরে কোন মেদ জমায় না। অপরদিকে সাদাত খাবারকে সহজে পাচ্য হতে সহায়তা করে। ফলে সম্পুর্ণ খাদ্য সহজেই হজম হয়।
  • খাওয়ার পর কোল্ড ড্রিংক্স পান করবেন না। এসব বেভারেজ ওজন বৃদ্ধি করে।
  • পছন্দের মিষ্টি বা কুকি খাওয়া বাদ দেওয়ার দরকার নেই। তবে বেকারীতে গিয়ে একসাথে অনেকগুলো কিনে বাসায় আনবেন না। একটা কিনুন এবং শুধু ওই একটাই খান।
  • বেশি বেশি ফল খাবেন। প্রচুর পরিমাণে পানি খান।
  • ঈদের এই ছুটিতে কখনো দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকবেন না। একটু ক্ষুধা লাগলেই খাবেন, কিন্তু অল্প অল্প করে।
  • ঘুরা-ঘুরির সময় ফার্স্ট-ফুড খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। একটি মাত্র চিজি বা মায়োনিজ যুক্ত খাবার আপনার শরীরের ওজন কয়েক গ্রাম বাড়িয়ে দিবে।
  • মাছ বা গোশতের তৈলাক্ত অংশ খাবেন না। এতে শরীরের ফ্যাট বাড়ে।
  • ঘরে যেসকল খাবার রান্না হবে তা যেন বেশি মশলাদার হয় এ ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। বেশি মশলাদার খাবার চর্বি পোড়াতে সহায়তা করে।
  • তিন দিন পরপর ওজন মাপতে পারেন। এতে ওজন কমানোর ক্ষেত্রে সতর্কতা আপনার সবসময় মনে থাকবে।
    উপরের পন্থা গুলো মেনে চললে আপনি এই ছুটিতে বাড়তি ওজন বৃদ্ধি থেকে মুক্ত থাকতে পারবেন।

ভালো কাটুট আপনার ঈদ এই আপাদের প্রত্যাশা।

২০-৫-২০১৭-০০-২২০-২০-
Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।