হেমন্তকাল, বৃহস্পতিবার, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,১৮ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি, রাত ১০:৫৯
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

বাবা-চাচার বিরুদ্ধে মামলা মুশফিকের…

admin

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

বগুড়ায় স্কুলছাত্র মাসুক ফেরদৌস হত্যার ঘটনায় ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিমের বাবা মাহবুব হামিদকে প্রধান আসামি করে ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বগুড়া সদর থানায় এ মামলা করেন নিহত মাসুকের বাবা জাসদ নেতা এমদাদুল হক এমদাদ।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- মুশফিকুর রহিমের চাচা ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মেজবাহুল হামিদ, মো. লাল মিয়া, মো. খায়রুল, আল আমিন হেলাল, ছামছুল, মো. তারাজুল ইসলাম, মো. নাইম ইসলাম, মো. অনিক ইসলাম, মো. নাহিদ, কাঞ্চন, ফয়সাল, শাকিল, সাকিব, বিটুল ও আল মামুন।

শনিবার রাতে বগুড়া শহরের মাটিডালি হাজীপাড়া এলাকায় এসওএস হারমান মেইনার স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র মাসুক ফেরদৌসকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এর প্রতিবাদে সোমবার শহরের সাতমাথায় এক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় নিহত মাসুকের বাবা ইমদাদ তার ছেলের খুনের সাথে মুশফিকের বাবা মাহবুব হামিদের জড়িত থাকার অভিযোগ করেন। এর একদিন পরেই মঙ্গলবার মামলা করলেন তিনি।

এমদাদ দাবি করেন, মাটিডালি উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি এবং আরেকটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা নিয়ে বিরোধ থেকে তার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, মাহবুব হামিদ তারা ও তার ছোট ভাই বগুড়া পৌরসভার ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মেজবাহুল হামিদের সঙ্গে পারিবারিক শত্রুতা এবং মাটিডালি উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে বাদীর শত্রুতা চলে আসছিল। তারা বিভিন্ন সময় বাদী ও বাদীর পরিবারের ক্ষতি করার পরিকল্পনা করতে থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় গত শনিবার রাতে প্রতিবেশী বেলাল হোসেন ফকিরের বাড়িতে তার ছেলে নাইমকে দিয়ে মাসুক ফেরদৌসকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রধান আসামি মাহবুব হামিদ তারা ও অপর আসামি লালমিয়া মাসুককে জাপটে ধরলে অপর আসামি ফয়সাল মাসুককে হত্যার উদ্দেশ্যে পেছন থেকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এসময় মাসুক মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হত্যাকারীরা উল্লাস করে চলে যায়। পরে অধিক রক্তক্ষরণে মাসুকের মৃত্যু হয়।

হত্যাকাণ্ডের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হলেও সাফিন নামে এক কিশোরকে রেখে বাকি দুজনকে পুলিশ ছেড়ে দিয়েছে। আটক সাফিন নিহত মাসুক ফেরদৌসের বন্ধু।

বগুড়া সদর থানার ওসি এমদাদ হোসেন জানান, জাসদ নেতার ছেলে খুনের ঘটনায় মঙ্গলবার ১৬ জনের বিরুদ্ধে নিহতের বাবা বাদী হয়ে যে অভিযোগ করেছেন, সেটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।

১৭/৫/২০১৭/০-৩০-১৭/অপূর্ব হাসান/

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।