বসন্তকাল, সোমবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,১৭ই রজব, ১৪৪২ হিজরি, সকাল ৬:০৩
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর |

সারাদেশ

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

এক্সক্লসিভ রেসিপি: ঘরেই টক দই তৈরি করার সহজ উপায়…

admin

নূরজাহান নীরা, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

সব বয়সের মানুষের জন্যই স্বাস্থ্যকর একটি খাবার হলো টক দই। শুধু তাই নয়, মজাদার বিভিন্ন রান্নাতেও টক দই না দিলে মনে হয় কী যেন বাকি রয়ে গেলো। বাজারে কেনা দইয়ের মান একেক জায়গায় একেক রকম, ভেজালের ভয় তো আছেই। কিন্তু কোনো রকম ঝামেলা ছাড়াই বাড়িতে যদি তৈরি করে ফেলা যায় দই তাহলে কেমন হয় বলুন তো?
দই তৈরি করতে অনেকেই ভয় পান, ভাবেন কী না কী দরকার হবে। অনেকে আবার দই তৈরির চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে আর ওমুখো হন না। এখানে যে রেসিপি দেওয়া হলো, তা অনুসরণ করলে নিতান্ত আনাড়ি রাঁধুনিও তৈরি করে ফেলতে পারবেন নিখুঁত দই। আর এর জন্য খুব বেশি উপাদানেরও দরকার হবে না।
উপকরণ

– এক লিটার দুধ
– এক চামচ দই
– মাটির ছোট দুটি ভাঁড়
প্রণালী

১) একটি নন-স্টিক সসপ্যানে দুধ ঢেলে চুলোয় একটু গরম করে নিন। সাবধান, দুধ ফুটাবেন না কিন্তু! সামান্য গরম করতে হবে শুধু। এমনভাবে গরম করবেন যাতে এর মাঝে আঙ্গুল ডুবিয়ে দেখা যায় গরম হয়েছে কী না। খাবারে ব্যবহারের থার্মোমিটার থাকলে দেখে নিন ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা হয়েছে কি না। গরম হলে চুলা নিভিয়ে দিন।
২) এরপর এই গরম করা দুধ মাটির ভাঁড় দুটোয় ঢেলে নিন। এক্ষেত্রে মাটির ভাঁড় ব্যবহার করা ভালো কারণ তাতে দই থেকে অতিরিক্ত পানি বের হয় যাবে আর দই খুব ভালো জমবে। মাটির ভাঁড় না থাকলে, কাঁচ, প্লাস্টিক বা স্টিলের বাটিতেও দই জমাতে পারেন।
৩) এবার এই মাটির ভাঁড়ে থাকা দুধের মাঝে সামান্য পরিমাণ দই দিতে হবে। চা চামচের মাথায় করে সিকি চামচ দই দুধের মাঝে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এটা ভালো করে মনে রাখবেন যে দই পাতার জন্য পুরনো দই ব্যবহার করাটা জরুরী। নিজের বাসায় না থাকলে অন্তত প্রতিবেশীর বাসা থেকে এক চা চামচ দই নিয়ে আসুন। খুব অল্পই প্রয়োজন হবে।
৪) এরপর দই পাতা পাত্র রেখে দিন কক্ষ তাপমাত্রায়। কিচেন কেবিনেটে রাখতে পারেন বা একটি বড় বোল চাপা দিয়ে টেবিলেও রাখতে পারেন। তবে অবশ্যই উষ্ণ জায়গায় রাখতে হবে। ঠাণ্ডা জায়গায় রাখা যাবে না। আর ফ্রিজে তো রাখাই যাবে না।
৫) এভাবে ৬-৮ ঘন্টা রেখে দিলেই তৈরি হয়ে যাবে দই। শীতকালে আরেকটু বেশি সময় রাখতে পারেন। গরমকালে আরো কম সময় লাগতে পারে। তবে এর ওপর নজর রাখা জরুরী। কারণ গরমকালে বেশি সময় বাইরে রেখে দিলে দই টকে নষ্ট হয়ে যাবে। যখন দেখবেন দই জমে গেছে, তখন একে ফ্রিজে রাখতে পারেন, রান্নায় ব্যবহার করতে পারেন অথবা খেয়ে নিতে পারেন তখনই।

১৫/৫/২০১৭/০-১৫০-৭/

Share on facebook
Facebook
Share on google
Google+
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

সর্বশেষ খবর

Leave a Reply

সর্বাধিক পঠিত

আরো খবর পড়ুন...

বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম :
প্রধান সম্পাদক : লায়ন মোমিন মেহেদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : লায়ন শান্তা ফারজানা
৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা
email: mominmahadi@gmail.com
shanta.farjana@yahoo.co.uk
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।