হায়দ্রাবাদকে বিদায় দিলো কেকেআর…

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

সংগ্রহ ১২৮ রান। তার ওপরে বৃষ্টি কারণে প্রতিপক্ষ কলকাতা নাইট রাইডার্সের ইনিংসের দৈর্ঘ্য ৬ ওভারে আনা হলো। এমন কিছু ঘটার ভাবনা ঘুণাক্ষরেও হয়তো মাথায় আনেনি সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। ৪ বল হাতে রেখেই ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে নির্ধারিত ৪৮ রানের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় কলকাতা। আইপিএল থেকে বিদায় নিশ্চিত হয় হায়দ্রাবাদের।

বুধবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) এলিমিনেটর ম্যাচে গেল আসরের চ্যাম্পিয়ন হায়দ্রাবাদকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে গৌতম গম্ভীরের কলকাতা। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে শুক্রবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে তারা মুখোমুখি হবে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের।

এম চিন্নস্বামী স্টেডিয়ামে বৃষ্টির কারণে প্রায় সাড়ে তিনঘণ্টা খেলা বন্ধ থাকে। মাঠ খেলার উপযোগী হতেই ব্যাটিংয়ে নামে কলকাতা। ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৬ ওভারে ৪৮ রান। কলকাতার ইনিংসের প্রথম ৭ বলে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে দারুণ রোমাঞ্চ ছড়িয়েছিলেন হায়দ্রাবাদের বোলাররা। দলীয় ১২ রানের মধ্যেই সাজঘরে ফেরেন ক্রিস লিন (৬), ইউসুফ পাঠান (০) ও রবিন উথাপ্পা (১)। কিন্তু গম্ভীর সেই রোমাঞ্চে জল ঢেলে দেন। খেলেন ১৯ বলে ৩২ রানের ঝড়ো ইনিংস। ৫.২ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় কলকাতা।

এর আগে টসে জিতে হায়দ্রাবাদকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান কলকাতার অধিনায়ক গম্ভীর। তাদের বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে স্কোরবোর্ডে ৭ উইকেটে ১২৮ রান জমা করে হায়দ্রাবাদ। শুরু থেকেই রান তোলার জন্য রীতিমতো লড়াই করতে হয় দলটির ব্যাটসম্যানদের। ওয়ার্নার, শিখর ধাওয়ান, কেন উইলিয়ামসনদের কেউই হাত খুলে খেলতে পারেননি। ৩৫ বল মোকাবেলা করে সর্বোচ্চ ৩৭ রানের ইনিংসটি খেলেন ওয়ার্নার। উইলিয়ামসন ২৬ বলে ২৪ ও ধাওয়ান ১৩ বলে ১১ রান করেন। এছাড়া বিজয় শঙ্কর ২২ ও নামান ওঝা ১৬ রানের ইনিংস খেলেন। কলকাতার পক্ষে নাথান কোল্টার-নাইল ২০ রানে নেন ৩ উইকেট। উমেশ যাদব পান ২ উইকেট। একটি করে উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন ট্রেন্ট বোল্ট ও পিয়ুশ চাওলা।

১৮/৫/২০১৭/০-২০-১৭/আ/হৃ/