জুন 04

মৃত্যুর ঠিক আগেই এই তেরো লক্ষণ সম্পর্কে জেনে নিন…

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

জন্মালে’ যে ‘মরতে’ হবে, এ কথা আমরা সবাই জানি। কিন্তু তা সত্ত্বেও মৃত্যু নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহল এবং ভয়- দু’টোই কাজ করে। মানুষ জানতে চায় তার জীবনের সীমা। জানতে চায়, কোনোভাবে মৃত্যুর পূর্বাভাস পাওয়া সম্ভব কি না। আর প্রাচীন হিন্দু পুরাণ জানাচ্ছে, মৃত্যুর সেই পূর্বাভাস পাওয়া সম্পর্কে। অবশ্য এ সবে বিশ্বাস করা একদমই শেষ নয়। তারপরও অনেকেই জানতে আগ্রহী বিষয়টি নিয়ে।

প্রাচীন পুরাণ থেকে জানা গেছে, মৃত্যু কবে হবে তা নির্দিষ্ট ভাবে জানা সম্ভব না হলেও, মৃত্যুর কিছু পূর্বাভাস যে কোনও মানুষই পেয়ে থাকে। অর্থাৎ তার মৃত্যু যে আসন্ন, তা যে কোনো মানুষই বিশেষ কয়েকটি লক্ষণ দেখে বুঝে নিতে পারে। কোন কোন লক্ষণ সেগুলি? আসুন, জেনে নেয়া যাক—

১. যদি কারোর মুখে আচমকা হলুদ বা লাল আভা দেখা দেয়, তা হলে ৬ মাসের মধ্যে তার মৃত্যু হবে বলে জানানো হচ্ছে।

২. আলোর সামনে দাঁড়ানো সত্ত্বেও যদি মাটিতে কোনও ব্যক্তির ছায়া না পড়ে, তা হলে মৃত্যু তার ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে বলে ধরে নেয়া যায়।

৩. আয়নার সামনে দাঁড়িয়েও যদি কোনও ব্যক্তি তার নিজের প্রতিবিম্ব আয়নায় না দেখতে পায়, তা হলে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে তার মৃত্যু অবধারিত।

৪. কারোর চোখে যদি আশেপাশের সমস্ত জিনিসই কালো দেখায়, তা হলে তার আয়ু শেষ হয়ে এসেছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

৫. যদি কারোর বাঁ হাঁত এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে ক্রমাগত কাঁপতে থাকে, তা হলে তার জীবনের বেশি দিন বাকি নেই বলেই জানাচ্ছে ‘শিবপুরাণ’।

৬. কেউ যদি চেষ্টা করেও তার নিজের নাকের ডগাটি দেখতে না পায়, তা হলে সে মৃত্যুর দোড়গোড়ায় এসে দাঁড়িয়েছে।

৭. মৃত্যুর আগে মানুষ উজ্জ্বল আলোও দেখতে পায় না। এটিও আসন্ন মৃত্যুর একটি পূর্বাভাস।

৮. পূর্ণিমাতেও আকাশের দিকে তাকিয়ে যদি কোনও ব্যক্তি পূর্ণ চাঁদের বদলে খণ্ডিত চাঁদ দেখতে পায়, তা হলে মৃত্যু তার দুয়ারে কড়া নাড়ছে।

৯. দু’ কানের উপরে দু’ হাত চেপে ধরলে সাধারণ ভাবে একটি শোঁ শোঁ শব্দ শোনা যায়। কিন্তু যার মৃত্যু আসন্ন, সে কানের উপরে হাত চেপে ধরলে এমন কোনও শব্দ শুনতে পায় না।

১০. যার ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে মৃত্যু, তার সর্বদাই মনে হয়, সে যেন তার মৃত আত্মীয়দের সঙ্গে রয়েছে।

১১. মৃত্যুর দোরগোড়ায় দাঁড়ানো মানুষের সব সময়ে মনে হয়, একটি অদ্ভুত ছায়া যেন তার সঙ্গে সঙ্গে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

১২. ধ্রুবতারাকে আকাশের উজ্জ্বলতম তারা বলে মিনে করা হয়। কিন্তু যার আয়ু শেষ হয়ে এসেছে, সে আকাশে তাকিয়েও ধ্রুবতারাকে দেখতে পায় না।

১৩. মৃত্যুর আগে মানুষের শরীর থেকে এক অদ্ভুত গন্ধ উত্থিত হতে থাকে। এই গন্ধ অন্য কোনও পার্থিব গন্ধের সঙ্গে তুলনীয় নয়। কিন্তু মৃত্যুগন্ধ নামে পরিচিত এই গন্ধকে ঘ্রাণশক্তির সাহায্যে চিনে নেয়া সম্ভব বলে মনে করা হয়।

ফরহাদ শিমুল-০৪-০৬-১৭-০০-৮০