মশাদেরও বানানো যায় বোকা….

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

পিনপিন করে জ্বালায় মশা! শান্তিমতো যায় না বসা!’ ওয়াশরুমের দেয়ালে কে যেন কাঁচা হাতে লিখে রেখেছে। সত্যিই, মশাদের চোখ এড়ানো বড্ড কঠিন কাজ। আলো নিভিয়ে ঘুটঘুটে অন্ধকারে পৃথিবীর সবাইকে ফাঁকি দেয়া গেলেও মশাবাহিনী পিনপিন শব্দে ডানা মেলে ঠিক হাজির হয়ে যায় ভুরিভোজনে! কখনো ভেবে দেখেছ মশারাা কীভাবে খোঁজ পেয়ে যায় আমাদের? ঘরের ভেতর চেয়ার, টেবিল, বালিশ, কাঁথা এতকিছু থাকতে কীভাবে ঠিকঠিক চিনে নেয় ওদের শিকার?

 

আড্ডায় এক বন্ধু গল্প ফেঁদেছে মশারির ভেতর কোলবালিশ, কাঁথার নিচে রেখে সে দিব্যি মশারির বাইরে ঘুমিয়েছে নির্বিঘ্নে, সারা রাত মশারা বেচারা বালিশটাকে মানুষ মনে করে কামড়ে হয়রান হয়ে গিয়েছে! ব্যাপারটি যে একটি তামাশা সেটি সাথে সাথে বলে দেয়া যায়- কারণ, মশারা কাঁথার নিচে কে আছে সেটি দেখে না, তারা আসলে যেটি অনুসরণ করে তা হচ্ছে কার্বন ডাই-অক্সাইড!

 

ফ্রিজ ঘরের গরম হাওয়া টেনে ঠাণ্ডা করে উত্তাপটুকু আবার ঘরের ভেতরেই ফিরিয়ে দেয়। এভাবেই মানুষের শ্বাস-প্রশ্বাসের সাথে প্রতি মুহূর্তে কার্বন ডাই-অক্সাইড নিঃসৃত হচ্ছে। এছাড়া মানুষের শরীরের নিজস্ব উত্তাপ তো আছেই। মশারা সেগুলো থেকে দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে বের করে ফেলে এটি একটি জীবন্ত প্রাণী; একে কামড়ানো যায়! তাহলে কি তাদের ফাঁকি দেয়ার কোন উপায় নেই? আছে বৈকি! সিঙ্গাপুরের একদল বিজ্ঞানী বেশ মজার একটি উপায় বের করেছেন।

কৌশলটি খুব সহজ, তারা ‘মেগা ক্যাচ’ নামের একটি বাক্স তৈরি করেছেন। সেটিতে বিদ্যুতের সাহায্যে তাপ উৎপন্ন করা হয়। তারপর কার্বন ডাই-অক্সাইডকে জলীয় বাষ্পে সিক্ত করে সিলিন্ডারের সাহায্যে ছাড়া হয়, একদম হুবহু মানুষ যেভাবে নিঃশ্বাস ছাড়ে! এই তাপ এবং কার্বন ডাই-অক্সাইডের খবর পেয়ে মশারা মহানন্দে ছুটে আসে, জিনিসটি যে মানুষ নয়, একটি বাক্স- সেটি তারা ঘুণাক্ষরেও ধরতে পারে না! তখন তাদেরকে ফাঁদে ফেলার জন্য বাক্সের গায়ে ছোট্ট একটি দরজা দিয়ে আলোর ঝলক দেখানো হয়। অন্যান্য পোকামাকড়ের মতো মশারাও আলোর বেজায় ভক্ত (সব রকম আলো নয়, একটি নির্দিষ্ট কম্পাঙ্কের আলোর তরঙ্গ), তাই তারা নাচতে নাচতে সেই দরজা দিয়ে ঢুকে পড়ে বাক্সের ভেতরে! সেখানে তাদের জন্য অপেক্ষা করছে একটি ফ্যান, সেই ফ্যানের বনবন বাতাসের তোড়ে মশারা উড়ে গিয়ে পড়ে বাক্সের নিচে থাকা পানিতে!

 

মশারা কিন্তু সাঁতার জানে না, তাই সেই পানিতে ডুবে অল্পতেই সলিল সমাধি ঘটে বেচারাদের। মজার এই বাক্সটি এক রাতেই হাজারখানেকের বেশি মশা ধরে ফেলতে পারে!

২০-০৬-১৭-০০-৪০