বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে রাতভর ধর্ষন….

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

ফরিদপুরের নগরকান্দায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক কিশোরীকে (১৬) অন্যত্র নিয়ে রাতভর যৌন নির্যাতন করার অপরাধে ৫০ হাজার টাকায় সালিশ মীমাংসা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, নগরকান্দা উপজেলার তালমা ইউনিয়নের মানিকদী পাগলপাড়া গ্রামের আবু মাতুব্বরের ছেলে আলাউদ্দিন মাতুব্বর অন্তর প্রতিবেশী এক কিশোরীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে মোবাইলে শতাধিক আপত্তিকর ছবি তোলে। এর ধারাবাহিকতায় অন্তর ফরিদপুর সদরে তার আত্মীয়ের বাড়িতে কিশোরীকে নিয়ে রাত কাটায়। এ সময় কিশোরীর বাবা মা বাড়িতে ছিলেন না। বাড়ির সদস্যরা মেয়েটিকে বাড়ির কোথাও না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন। কিশোরীর বড় ভাই বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, তার বোনকে প্রতিবেশী অন্তর কোথাও নিয়ে গেছেন। অন্তরের দাদা সামছু মাতুব্বর সকালে ফরিদপুর থেকে কিশোরীকে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসেন। স্থানীয় মাতুব্বরেরা গত বিকালে মেয়েটিকে তার বাবার কাছে হস্তান্তর করেন।

কিশোরীর বাবা বলেন, স্থানীয় মাতুব্বরেরা সালিশ করেছে। তারা ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৫০ হাজার টাকা রোজার ঈদের পরে দিতে চেয়েছে। আমি সালিশে নারাজি দাবি জানাই এবং এর সুষ্ঠু বিচার চাই। কিশোরী বলেন, অন্তর আমাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ফরিদপুর তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে যায়। বিয়ে না করেই আমাকে রাতভর যৌন নির্যাতন করে। অন্তর মোবাইলে আমার অন্তরঙ্গ ছবি তুলে। অন্তরের বাবা আবু মাতুব্বর বিদেশে থাকেন। তাই এ ব্যাপারে অন্তরের দাদা সামছু মাতুব্বরের সাথে কথা বলতে চাইলে তার বাড়ির সদস্যরা জানান, ‘তিনি (সামছু মাতুব্বর) অসুস্থ, এখন কথা বলতে পারবে না।’ অন্তরের মা জানান, যা হয়েছে তা মীমাংসা করা হয়েছে।

১৫-০৬-১৭-০০-৬০