মে 14

নবজাতককে গোসলের সঠিক নিয়ম….

নূরজাহান নীরা, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

নবজাতককে গোসল করানো নিয়ে অনেক মাই জানেন না। ছোট্ট একটা প্রাণ। তাকে পৃথিবীতে আনতে দশ মাস মাকে কতই না কষ্ট করতে হয়। ছোট্ট সেই নবজাতকের আগমনের পরও মায়ের ভয়, দুশ্চিন্তার কমে না। ছোট্ট সোনামণির যত্নে মা-বাবা তখন আরো ব্যস্ত হয়ে পরেন। শিশু জন্ম নেওয়ার কিছুক্ষণ পর তাকে গোসলে করানো হয়। এক্ষেত্রেও মা-বাবাকে অনেক সাবধান থাকতে হয়। কারণ একটু বেশি ঠান্ডা লেগে গেলেই শিশুর বিভিন্ন ধরনের অসুখ দেখা দিতে পারে। তাই জেনে নিন নবজাতককে গোসল সহজে করানোর নিয়ম।

নবজাতককে গোসল করানোর নিয়ম

  • প্রথমে পরিষ্কার কিছু তুলো ও পরিষ্কার টাবে কুসুম গরম পানি নিন। নবজাতককে গোসল এর আগে প্রথমে তার শরীরে কোন ময়লা লেগে থাকলে তা পরিষ্কার করুন। তাই প্রথমে তুলা দিয়ে বাচ্চার মুখ, চোখ মুছে নিন। তারপএ তুলা ভিজিয়ে তুলার পানি চিপে ফেলে দিন। ভিজে তুলো দিয়ে পুনরায় মুখ, গাল, চোখ, কান, গলা মুছে দিন। শিশুদের শরীর খুব নরম ও কোমল হয়। তাই খুব জোরে ঘষবেন না। আপনার কাছে যে ঘষা টা স্বাভাবিক মনে হচ্ছে তা ছোট্ট বাচ্চাটির জন্য জোরালোও মনে হতে পারে। শিশুকে যতটা সম্ভব আলতো করে স্পর্শ করুন।
  • এরপর শিশুটিকে কোলে নিয়ে তার মাথাটি বাথ টাব এর উপর নিন। আপনার হাতের তালুলে পানি নিয়ে দুই থেকে তিনবার তার মাথাটি ভিজিয়ে দিন। এরপর সাথে সাথে মাথাটি আলতো করে মুছে টিস্যু বা তোয়ালে দিয়ে মুছে দিন।
  • এখন শিশুটির শরীর ধৌত করতে হবে। শিশুর শরীরে কোন কাপড় বা তোয়ালে থাকলে তা খুলে নিন। দুই হাত দিয়ে একটু বাকা করে ধরুন যাতে মাথা ও গলা পানির উপরে থাকে। এভাবে আস্তে আস্তে শিশুকে পানিতে নামান।
  • অল্প অল্প পানির ঝাপ্টা দিয়ে গলার নিচ থেকে সারা শরীর মুছে দিন। শিশুটিকে ৪০-৫০ সেকেন্ডের বেশি পানিতে না রাখাই ভাল। শিশুটিকে পানি থেকে তুলে সাথে সাথে নরম তোয়ালেতে মুড়িয়ে নিন। আস্তে আস্তে শরীর মুছে দিন। পরিষ্কার পাতলা কাপড় পরিয়ে দিতে পারেন।
  • নবজাতককে গোসল এর পর নবজাতকের ঘাড়, পিঠ আলতো করে ম্যাসাজ করে দিতে পারেন। বেশীরভাগ শিশুই এতে খুব আরাম পায়।

শিশুর জন্মের পর পরই অনেকে শিশুর মাথা মুড়িয়ে ফেলে। কিন্তু অনেক শিশু বিশেষজ্ঞদের মতে, এতে শিশুর মস্তিষ্কে চাপ পরতে পারে। তাই শিশুর জন্মের কয়েকদিন পর মাথা মুড়ানো ভালো।

১৪/৫/২০১৭/২৪০/