থাই তরুণী প্রেমের টানে বাংলাদেশে…

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রেম করে বাংলাদেশে ছুটে আসছেন অনেক বিদেশী সুন্দরী তরুণী। সর্বশেষ প্রেমের টানে বাংলাদেশে ছুটে এসেছেন থাইল্যান্ডের এক তরুণী। বিয়ে করেছেন ভালোবাসার মানুষটিকে।

বুধবার নাটোরের আদালতে বিয়ের কাজটি সম্পন্ন করেন বাংলাদেশের অনিক খান ও থাইল্যান্ডের সুপুত্তো ওরফে ওম ওরফে সুফিয়া খাতুন।

সুপুত্তো ওরফে সফিয়া বলেন, ‘থাইল্যান্ডের সমাজে বহু বিবাহ একটা রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমি এটা পছন্দ করি না। তাই বিয়ে করছিলাম না। হঠাৎ করে ফেসবুকে বাংলাদেশের অনিকের সঙ্গে পরিচয় হয়। ওর সরলতা আমাকে মুগ্ধ করে। ধীরে ধীরে ওর প্রতি আমার আস্থা জন্মেছে। আমি ওকে ভালোবেসে ফেলেছি। ওকে আপন করে নেয়ার জন্য বারবার এ দেশে ছুটে এসেছি। এবার সে স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। বিয়ে করে আমি এখন দারুণ সুখী।’

৩৬ বছর বয়সী সুপুত্তো জানান, পড়াশোনা শেষ করে তিনি প্রথমে ব্যাংকে চাকরি করতেন। সেটা ছেড়ে দিয়ে এখন ফাস্ট ফুডের ব্যবসা করেন। দোকানে বসে ফেসবুক ঘাঁটাঘাঁটি করতে গিয়ে বাংলাদেশের ২২ বছরের তরুণ অনিক খানকে বন্ধুত্বের প্রস্তাব (ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট) পাঠান। প্রথমে দুজনের মধ্যে ফেসবুকে কথা হতো। পরে ফোনে কথাবার্তা চলতে থাকে।

১৮/৫/২০১৭/০-১৭০-১৮/মা/হা/তা/