ট্রাম্পের সাথে কিমের বন্ধুত্ব কোথায়: হিলারি…

 ডেস্ক রিপোর্ট , বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পরাজয়ে নিজ দায়িত্বের কথা স্বীকার করেও হিলারি ক্লিনটন বলেছেন, তবে নারীবিদ্বেষ, রাশিয়ার প্রভাব এবং এফবিআই’র প্রশ্নবিদ্ধ সিদ্ধান্ত নির্বাচনের ফলাফলকে প্রভাবিত করেছে বলে তিনি বিশ্বাস করেন।

হিলারি গত বৃহস্পতিবার নিউ ইয়র্কে উওম্যান ফর উওম্যান ইন্টারন্যাশনাল-এর বার্ষিক মধ্যাহ্নভোজ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আগামী বইতে এসব স্মৃতিচারণ করতে তাঁর খুব কষ্ট হচ্ছে।

সিএনএনের ক্রিস্টিয়ানা আমানপোরের সঙ্গে এক প্রশ্নোত্তর পর্বে হিলারি বলেন, ২৮ অক্টোবর উইকিলিকস এফবিআই পরিচালক জিম কমে’র একটি চিঠি প্রকাশ করে না দেয়া পর্যন্ত জয়ের পাল্লা আমার দিকেই ঝুঁকেছিল। কিন্তু ওই চিঠি মানুষের মনে সন্দেহ ছড়িয়ে দেয় এবং অনেকে আমার দিক থেকে মুখ ঘুরিয়ে নেয়।

হিলারি তাঁর সমাবেশে বিপুলসংখ্যক উৎসাহী নারীপুরুষের যোগদানের এবং ট্রাম্পের চাইতে ৩০ লাখ ভোট বেশি পাওয়ার কথা স্মরণ করে বলেন, যদি ২৭ অক্টোবর নির্বাচন হতো তাহলে আমিই আপনাদের প্রেসিডেন্ট হতাম।

ওই নির্বাচনে রাশিয়ার কলকাঠি নাড়ানোর কথা তুলে ধরে হিলারি বলেন, ওরা (রাশিয়া) আমার ক্যাম্পেইনের ই-মেইল হ্যাক করেছে এবং একইসঙ্গে তা উইকিলিকসে যাতে ফাঁস করা হয়, তাও তত্ত্বাবধান করেছে।

তিনি বলেন, তিনি (রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন) অবশ্যই আমাদের নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেছেন। এটা পরিষ্কার যে তিনি আমার ক্ষতি এবং আমার প্রতিপক্ষকে সাহায্য করার জন্যই এটা করেছেন।

তিনি নারীবিদ্বেষের শিকার কি না জানতে চাওয়া হলে হিলারি বলেন, ”ইয়েস, আমি মনে করি এরও একটা ভূমিকা ছিল। কারণ, এটা (নারীবিদ্বেষ) এদেশের রাজনীতি, সমাজ ও অর্থনীতির সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িত।

এদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পরে হিলারির এসব বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে এক টুইটার বার্তায় বলেন, এসব গালগল্প আসলে পরাজয়কে ঢাকার অজুহাতমাত্র।

৩/৫/২০১৭/২৯০/আ/হৃ/