জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অতি উৎসাহী ছাত্রলীগ নেতার কান্ড

বেলাল হোসেন, জাবি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) শাখা ছাত্রলীগের অতি উৎসাহি নেতার কা-ে হতভম্ব ও বিব্রত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। এ নেতার উটকো, অনৈতিক ও অহেতুক কার্মকা-ে একাধিকবার তোপের মুখে পড়েছে শাখা ছাত্রলীগ। হামজার রহমান অন্তরের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ বর্তমানে সে জাবি শাখা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি।


জানা যায়,  রাতের অন্ধকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম খালেদা জিয়া হলের মূল গেটের নামের উপরে হাতে লেখা ‘রোকেয়া হল’ লেখা একটি কাপড়ের ব্যানার ঝুলিয়ে দেয় এক দল দুবৃত্তরা। সোমবার সকালে বিষয়টি জানজানি হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা সমালোচনার ঝড় তোলেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রাতের অন্ধকারে কোন উর্ধতন নেতাকে না জানিয়ে নেক্কারজনক ও নিন্দনীয় এ কাজটি করে হামজা রহমান অন্তর। তার সাথে দু’এক জন অনুসারী ছিলো বলেও জানা গেছে।
অন্তরের এমন প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকা-ের দায় নিতে অস্বীকার করেছে শাখা ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতারা। নেতারা বলছেন, আমাদের বা সংগঠনের অনুমতি ছাড়াই সে দাম্ভিক্য দেখাতে এমন কাজ করেছে। আর এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিরূপ মন্তব্য করেছেন শাখা ছাত্রলীগের সাবেক শীর্ষ নেতারা। এমনকি তারা হামজা রহমান অন্তর ও এর সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।
অপরদিকে এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম ও শাখা ছাত্রদল। একই সাথে তারা এই ঘটনায় জড়িত চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের বিচারের দাবি জানিয়েছে প্রশাসনের কাছে।
এ বিষয়ে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে খালেদা জিয়া হলের প্রাধ্যক্ষ সহযোগী অধ্যাপক হোসনে আরার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
অভিযুক্ত হামজা রহমান অন্তর বলেন, ‘হলের নাম পরিবর্তন করার বিষয়ে আমি প্রশাসন কিংবা শাখা ছাত্রলীগকে অবহিত করিনি। নৈতিকতার জায়গা থেকে আমি এ কাজ করেছি।