চাঁপাইনবাবগঞ্জ ২ আসনে রাজনীতিবিদ আনোয়ার মনোনয়ন প্রত্যাশী

মোঃ আমিরুল মোমেনিন বাবু চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সৈনিক হিসেবে আশির দশক থেকে আওয়ামীলীগের দুর্দিনেও আমি অবিচল থেকে বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃতে আজও রাজনীতিতে সক্রিয় আছি। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সান্নিধ্যে যাবার সৌভাগ্য না হলেও দেশ রতœ জননেত্রী মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কাছথেকে দেখার সুয়োগ পেয়েছেন। ঐতিহ্যবাহী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে নাচোল উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নে সানপুর গ্রামের তরুণ রাজনীতিবিদ মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার ছাত্র জীবন থেকেই আওয়ামীলীগের রাজনীতির প্রতি প্রবল আগ্রহ ছিল মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ারের। সেই আগ্রহ থেকেই স্কুল জীবনে সম্পৃক্ত হন ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হিসেবে রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন। কেন্দ্রীয় ঘোষিত প্রতিটি কর্মসূচী সর্বস্তরের জনগণকে নিয়ে পালন করার চেষ্টা করেছেন এই মেধাবী রাজনীতিবিদ। এক সময় নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে ন্যায় নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন। চেষ্টা করেছেন জামাত বিএনপির অধ্যুষিত এলকায় ছাত্রলীগ সংগঠনকে শক্তিশালী করার জন্য। ফলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন এই তরুণ রাজনীতিবিদ। বর্তমানে চাঁপাইনবাবগঞ্জের স্থানীয় রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত রয়েছেন। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলা ফতেপুর ইউনিয়নের সানপুর গ্রামে ১৯৬৫ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম ঝড়– মন্ডল। স্কুল জীবন কেটেছে নাচোল উপজেলার একটি স্বনামধন্য উচ্চ বিদ্যালয়ে। পরবর্তীকালে উচ্চ শিক্ষার জন্য ঢাকা গমন করেন। প্রাচ্যের অক্সফোর্ড নামে খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম কম ও এম.বি.এ এবং আই.সি.এম.এ.বি থেকে এফ.সি.এম.এ ডিগ্রী অর্জন করেন। বর্তমানে শিক্ষকতার পাশাপাশি নিজের ব্যবসা প্রতষ্ঠিান ও রাজনীতিতে ব্যস্ত। তিনি জানান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার মানুষের কল্যাণে কাজ করার ¯পৃহা থেকে রাজনীতিতে এসেছেন। যাতে অবহেলিত, বঞ্চিত, নিপীড়িত, সুবিধা বঞ্চিত, ক্ষমতা বঞ্চিত পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর মূখে হাসি ফোটাতে পারেন। তিনি আরও জানান আমি এলাকার সন্তান, আমি এই এলাকার মাটিতে জন্মগ্রহণ করেছি। আমি এই মাটিতে বসবাস করি। ফলে যে কোন দূর্যোগময় সময়ে এলাকার মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছি। এলকাবাসী সুখ দুঃখের ভাগিদার হতে পেরে আমি নিজে খুবই আনন্দিত। সংশ্লিষ্ট এলাকার শীতার্ত মানুষের পাশ্বে দাঁড়িয়ে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন। একই সঙ্গে ধর্মীয় অনুষ্ঠান, ঈদ, পূজোয় সাধারণ মানুষের মধ্যে পোশাক বিতরণ করেছেন এই তরুন রাজনীতিবিদ। দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক সংগঠণ ও সামাজিক আন্দোলনের সাথে যুক্ত রয়েছেন। তৃণমূল থেকে উঠে আসা তুমুল আলোচিত এই তরুণ নেতা অল্প সময়ের মধ্যেই নিজের মেধা,শ্রম ও ভালোবাসা দিয়ে এলাকার মানুষের মন জয় করতে সক্ষম হন। তিনি বিভিন্ন ধর্মের মানুষের ধর্মীয় উৎসবে দুই হাত ভরে সাহায্য করেন। তিনি এলাকার মসজিদ, মন্দির, গির্জা প্রভৃতি নির্মাণে সহযোগীতা করে থাকেন। শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নতির জন্য স্কুল মাদ্রাসায় নিজে গিয়ে খোজ-খবর নিয়ে থাকেন। এলাকার উন্নয়নের জন্য এলাকার মুরব্বিদের সাথে উন্নয়ন মূলক বিষয় নিয়ে পরামর্শ করে থাকেন। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনকে ডিজিটাল আসনরূপে দেখতে চান এবং এর জন্য তিনি সকল প্রকার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তিনি এলাকার যে কোন মানুষের চিকিৎসা সেবার জন্য নিজ খরচে হাসপাতালে ভর্তি করে থাকেন। সর্বচ্চো চিকিৎসার জন তিনি অনেককেই ঢাকায় এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন। সংখ্যালঘুদের বিপদের দিনে সর্বদায় তিনি পাশে ছিলেন আছেন এবং আগামীতে থাকবেন। মেধাবী ও বহুগুণের অধিকারী মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার অচিরেই এলাকার সাধারণ মানুষের মন জয় করে নিতে পেরেছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের কাছে তিনি গরীব দুঃখীর বন্ধু একজন সহজ সরল মাটির মানুষ। তিনি কখনই গরীব দুঃখীর কামার কুলিকে আলাদা করে দেখেন না। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন নির্দিধায় তরুণ এই নেতা মানুষকে ভালোবেসে মানুষের সেবা করে যাচ্ছেন আপন মনে। মনের মধ্যে নেই কান অহংকার। আর দশজন মানুষের মতই তিনি সাধারণ জীবন যাপন করে থাকেন। অক্লান্ত পরিশ্রমী দুঃখি মানুষের উন্নয়নের চিন্তায় ডুবে থাকা এই মহান মানুষটি অনেক বাধা উপেক্ষা করে নবাবগঞ্জ ২ আসনে সকল জনগণের আর্শিবাদ মাথায় নিয়ে আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যশী। গত ০২ জুলাই/১৭ জাতীয় দৈনিক এশিয়া বাণী পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টে বলা হয়েছে আগামী সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের নৌকার মাঝি হয়ে হাল ধরতে চায় এই মেধাবী তরুণ সাবেক ছাত্র নেতা। যেহেতু দলের মধ্যে থেকে বলা হচ্ছে এবার তরুণদের বেশি মূল্যায়ন করা হবে। সেই ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে নবাবগঞ্জ -২ আসনে জনপ্রিয়তা ও জনসমর্থনের দিক থেকে সবার থেকে এগিয়ে রয়েছেন সাবেক এই ছাত্রনেতা মোঃ আনোয়রুল ইসলাম আনোয়ার।

সাবেক এই তরুণ ছাত্রনেতার বিশ্বাস জনগণ তার সাথে আছে তিনি জনগণের সাথে ছিলেন আছেন থাকবেন। তিনি দলের হয়ে জনগণের কল্যানে কাজ করেছেন দলের নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছেন মুজিবের আদর্শকে বুকে ধারণ করে কাজ করেছেন কখনও দলের বিরুদ্ধে জাননি। তাই আগামী সংসদ নির্বাচনে নৌকার টিকিট পাবেন এটাই তার দৃঢ় বিশ্বাস। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সাধারণ মানুষও মনে করেন জননেত্রী শেখ হাসিনা আনোয়ারকে এবার নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিয়ে নৌকার জনপ্রিয়তা ফিরিয়ে আনবেন। আনোয়ার বলেন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলথেকে মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধরে রাখতে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেবার আহ্বান জানান।

মোঃ আমিরুল মোমেনিন বাবু
জেলা প্রতিনিধি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ।