এপ্রিল 27

গাড়ির ধাক্কায় গুরুত্বর আহত নুসরাত

ডেস্ক রিপোর্ট , বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

বিলাসবহুল গাড়ির ধাক্কায় আহত হলেন টলিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। আর এই গাড়ির ধাক্কায় বদলে গেল ভালোবাসার মানুষ। তা নিয়েই আড়াই-তিনঘণ্টা ধরে চলল নানা টানাপোড়েন। ঘটনার মূল নায়ক দোটানায় পড়ে ভাবছে, ‘আমি যে কে তোমার।’ টলিউডে আবার একটা ত্রিকোন প্রেমের গল্প নিয়ে তৈরি হল বাংলা ছায়াছবি- ‘আমি যে কে তোমার।’ পরিচালক রবি কিনাগি। আর সেই ছবিই টাইটেল ট্রেকের আত্মপ্রকাশ ঘটল। পরিচালক দর্শকদের সামনে হাজির করলেন ছবির কলাকুশলী অভিনেতা অনকুষ, নুসরাত আর সায়ন্তিকাকে৷

পরিচালক রবি কিনাগি জানিয়েছেন, এটা আর পাঁচটা ত্রিকোন প্রেমের গল্প নয়। এতে যেমন প্রেমের কথা আছে, তেমনি আছে দুঃখ, আনন্দ!
এই ছবির চিত্রনাট্য অনুযায়ী, আমি যে কে তোমার মূল ভূমিকায় রয়েছেন তিনজন। অনকুষ, নুসরাত এবং সায়ন্তিকা।

ছবির গল্পটা হচ্ছে এমন, আদিত্যকে (অনকুষ) একজন passionate চরিত্রে দেখা যাবে। ছবিতে আদিত্য এবং প্রাচী (সায়ন্তিকা) বেস্ট ফ্রেন্ড। তারা এক সঙ্গে ব্যবসা করেন। ছবির শুরুতে গল্পটা এমনভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু এই ছবির গল্প টুইস্ট দিতে পর্দায় হাজির করানো হয় ইশারকে (নুসরাত)। ইশার একদিন রাস্তা দিয়ে সাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় আদিত্যের গাড়ি তাকে ধাক্কা মারে। ঠিক রুপোলি পর্দার স্টাইলেই আদিত্য-ইশার মধ্যে শুরু হয় ভালোবাসার রসায়ন। শুরু হয় মন দেয়া-নেয়ার পালা৷

আর পাঁচটা ত্রিকোন প্রেমের মতোই দেখা যাবে, প্রাচী অনেক আগেই আদিত্যকে মন দিয়ে ফেলেছে। কিন্তু, বুক ফাটলেও মুখ ফাটেনি। স্বাভাবিকভাবেই ইশা-আদিত্যের প্রেম কাহিনির মধ্যে ঢুকে পড়ে প্রাচী। তারপর ছবির আসল গল্প। আদিত্য বুঝে উঠতে পারে না, ‘আমি যে কে তোমরা’৷ আড়াই ঘণ্টা পর আদিত্য কাকে কাছে টেনে নেবে? তা আর খোসলা করতে চাননি পরিচালক। যার উত্তর একমাত্র জানেন পরিচালক রবি কিনাগি। ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে ১৯ মে৷