কুড়িগ্রামের জমি দখল পাচ্ছেন না ভূমিহীনরা…

ডেস্ক রিপোর্ট , বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার হরিশ্বর তালুক গ্রামের ১৪৯ ভূমিহীন পরিবার সরকারের বন্দোবস্ত দেয়া ১৫৭.৩০ একর খাস জমির দখল পাচ্ছেন না।

ভূমিহীন পরিবারগুলো বন্দোবস্তকৃত জমির দখল ফিরিয়ে পেতে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে দীর্ঘদিন থেকে ঘুরছেন। এতেও কোনো কাজ না হওয়ায় জমির দখল ফিরিয়ে পেতে ভূমিহীন পরিবারগুলো মানব বন্ধনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন করেছেন।

ভূমিহীন রিফুজি পরিবারগুলো জানায়, ভারত-পাকিস্তান বিভক্তির পর ১শ ৪৯টি ভূমিহীন পরিবারকে পূর্ণবাসন করার জন্য রাজারহাট উপজেলার হরিশ্বর তালুক মৌজার সি,এস-২৫ খতিয়ানের ২০৭ একর জমি হুকুম দখল করে ত্রাণ পুর্ণবাসন মন্ত্রণালয়কে বুঝিয়ে দেয় সরকার।

ভূমিহীন পরিবারের নিজাম উদ্দিন, নওশেদ আলী, লালু শেখ, তাইজ উদ্দিন ও ডালিমন বেওয়া জানান, ভূমিদস্যুরা প্রভাবশালী হওয়ায় এবং জমিতে গেলে অব্যাহত প্রাণনাশের হুমকী দেয়ায় আমরা জমিতে যেতে পারছি না।

এলাকার পুত্র রমজান আলী জানান, এখানে কোনো খাস জমি নাই। এগুলো আমাদের বাপ-দাদার সম্পত্তি।

এব্যাপারে রাজারজাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরজামান হক বুলু জানান, মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী সময়ে ১৪৯টি পরিবার হরিশ্বর তালুক মৌজা থেকে ভূমিদস্যুদের অত্যাচারে বিতারিত হয়ে ছিনাই ইউনিয়নের মহিদেব মীরের বাড়ি এলাকায় বসবাস শুরু করে। বর্তমানে পরিবারগুলো অসহায় অবস্থায় দিনযাপন করছেন।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ভূমিহীনদেরকে সরকারি খাস জমি চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত দেয়ার পর এ জমির মালিক অন্য কেউ হতে পারবে না। কিন্তু বন্দোবস্ত দেয়া জমির রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব তাদের। তবে ভূমিহীনরা যদি আদালতের শরণাপন্ন হয় সেক্ষেত্রে সরকার সহযোগী বাদী হয়ে ভূমিহীনদের সহযোগীতা করবে।

১২/৫/২০১৭/২০/ম/জা/