আত্মহত্যার পথ ও সাবিনা ইয়াসমিন

স্টাফ রিপোর্টার, দুবাই

নাম সাবিনা ইয়াসমিন, ঠাকুরগাঁও।অনেক সাধ করে বিয়ে করে শাহ নেওয়াজ নামের এক পশুকে। নেওয়াজ আগেও ২ টি বিয়া করে।ছলনা করে সাবিনাকেও বিবাহ করে। সুখের সংসার ভালই চলছিলো।২ টি ছেলে শাহান (১২) আদনান (৮)। গরিব এই মেয়েকে গত ১২ মে ২০১৭ আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হয়।নেওয়াজ (৪৮) দুবাই থাকে অনেক দিন থেকে।গত বছর সে ফিলিপিনি একটা মেয়ে কে সাবিনাকে না জানিয়ে বিয়া করে।সাবিনাকে সে কোনো টাকা দিত না বলত বেতন পাই নাই।

সাবিনা গত মাসে জানতে পারে নেওয়াজ আরেকটি বিয়া করে।সাবিনা নেওয়াজ কে মাফ করে দেয় আর বলে আমকে আমার সন্তানদের মানুষ করতে খরচ দিও।কিন্তু পাশন্ড স্বামি তাকে বলে আমি কোনো টাকা দিবনা কারন আমি ওই মেয়েকে ছারা বাচবো না।

এতিম মেয়েটি শত কান্না করেও কোনো রাস্তা পেলোনা।গত ৬ মাস সাবিনাকে কোনো টাকা দেয় নাই। সাবিনার কেউ নাই এই দুনিয়ায়।আমি তার লাশ দেখছি আর মনে হল সাবিনা ইনসাফ চায়।আপনার একটা শেয়ারে হয়তো সাবিনা ইনসাফ পাবে।নেওয়াজ এখন আর নিজের সন্তানাদের সাথে কোনো সম্পর্ক রাখবেনা।

আশুন আমরা নেওয়াজ কে দুবাই পুলিশকে ধরিয়ে দেই আর বাংলাদেশ এম্বাসি জেনো তার ব্যাবস্থা নেয়।নেওয়াজ দুবাই কারামা থাকে।

সবাই শেয়ার করে ধরিয়ে দেই এরোকম নড় পশু যে ঘুরে ঘুরে মেয়েদের জিবন নষ্ট করে।