অজানা গাড়ির রহস্য…

মাহামুদ/শিমুল/অপূর্ব, বাংলারিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম
পৃথিবীর প্রথম গাড়ি তৈরি হয়েছিল ১৭৬৯ সালে। ওজন ছিল ৮০০০ পাউন্ড! দ্রুত

গাড়ি চালানোর দায়ে পৃথিবীতে সর্বপ্রথম টিকেট ইস্যু হয়েছিল প্রথম গাড়ি তৈরির ১৩৫ বছর পর ডেইটন, ওহিওতে। গাড়ির গতি ছিল ঘণ্টায় ১২ কিলোমিটার।

একটা গাড়ির কয়টা পার্টস থাকে? অন্ততপক্ষে ৩০,০০০।

যদি কোনো বিরতি না নিয়ে ঘণ্টায় ৬০ কিলোমিটার গতিতে গাড়ি চালাতে থাকেন তাহলে চাঁদে পৌঁছে যাবেন ১৫৭ দিনে! মানে যদি কোনো অলৌকিক শক্তিতে মহাকর্ষণ শক্তি ভেদ করতে পারেন। আর সূর্যে যেতে লাগবে ১৫০ বছর!

একটা গাড়ি স্টার্ট নিতে অর্ধেক আউন্স গ্যাসোলিন লাগে মাত্র!

গাড়ির দরজা জোরে বন্ধ করা সুইজারল্যান্ডে অবৈধ!

প্রথম রিয়ার ভিউ মিররের ব্যবহার শুরু করেন রে হ্যারুন ১৯১১ সালে।

পৃথিবীর প্রথম গাড়ি দুর্ঘটনা হয় ১৭৭১ সালে! দুর্ঘটনার গাড়িটি এখনও সংরক্ষিত আছে প্যারিসের একটি জাদুঘরে।

যদি রিমোটের রেঞ্জের মধ্যে না থেকে ২৫৬ বার চাপ পড়ে তাহলে আপনার গাড়ির রিমোট নষ্ট হয়ে যাবে।

বর্তমানে ১ লক্ষ ৬৫ হাজার গাড়ি তৈরি হয় প্রতিদিন।

স্টিভ জবসের গাড়ির কোনো লাইসেন্স কার্ড নেই, কখনোই ছিল না!

২০১০ সালের তথ্য অনুযায়ী বর্তমান পৃথিবীতে ১ বিলিয়ন গাড়ি চলছে। খোদ আমেরিকাতে ২৫০ মিলিয়নের অধিক গাড়ি লাইসেন্স করা আছে।

লস এঞ্জেলস-এ মানুষ থেকে গাড়ির সংখ্যা বেশি।

১৯২৮ সালে এল্যান সুইফট নামে এক ভদ্রলোক তার বাবার কাছ থেকে একটি রোলস এন্ড রোয়েস ব্র্যান্ড-এর গাড়ি উপহার পায়। ১০২ বছর বয়সে ভদ্রলোক মারা যায়, তবে তার মৃত্যুর আগে পর্যন্ত গাড়িটি অক্ষত ছিল। গাড়িটির অডোমিটার রিড ছিল ১৭০০০০ কিলোমিটার।

একটি স্মার্ট কারে ১৯ জন মেয়ে বসানো সম্ভব।

গাড়ির ক্রুজ কন্ট্রোলের উদ্ভাবক ছিলেন একজন অন্ধ।

একবার ল্যাম্বরগিনি তার ব্যবহূত ফারারি গাড়ি সম্পর্কে অভিযোগ জানালে ফারারির লোক তাকে অপমান করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়েই ল্যাম্বরগিনি ফারারির প্রতিযোগী কোম্পানি হিসেবে ‘ল্যাম্বরগিনি’ প্রতিষ্ঠা করেন।

ফারারি প্রতিদিন গড়ে ১৪টি গাড়ি তৈরি করে।

১৫/৪/২০১৭/২৪০/